সারা দেশে নিষিদ্ধ দুই এনজিও

26

ডেস্ক নিউজ:
কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী মহাসমাবেশে আর্থিক সহায়তা প্রদান এবং প্রত্যাবাসনবিরোধী প্রচারণার দায়ে আদ্রা ও আল-মারকাজুল নামের দুটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার (এনজিও) সব ধরনের কার্যক্রম সারা দেশে নিষিদ্ধ করেছে সরকার। একইসঙ্গে তাদের সব ব্যাংক লেনদেন বন্ধ রাখার কথাও বলা হয়েছে। বুধবার এনজিও ব্যুরো থেকে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

গত ২২ আগস্ট দ্বিতীয় দফার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের উদ্যোগ ভেস্তে যাওয়ার জন্য বেশ কিছু এনজিও সংস্থার অপতৎপরতাকে দায়ী করে সরকার। এর পরপরই প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই গত ২৫ আগস্ট মহাসমাবেশের আয়োজন করে রোহিঙ্গারা। এতে আর্থিক সহায়তা এবং প্রত্যাবাসনবিরোধী প্রচারণা চালায় কিছু এনজিও।

এ নিয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত শুরু করা হয়। এতে রোহিঙ্গাদের মাঝে প্রত্যাবাসনবিরোধী উসকানির ইন্ধন এবং সমাবেশ আয়োজনের গোপন সহায়তার জন্য কয়েকটি বেসরকারি সংস্থার অপতৎপরতার অভিযোগ পাওয়া যায়। পরবর্তী সময়ে তদন্ত প্রতিবেদন এনজিও ব্যুরোর সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠানো হয়।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের এনজিও ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আশরাফুল আফসার জানান, কক্সবাজার এলাকায় আদ্রা ও আল-মারকাজুল নামে দু’টি এনজিওর সব কার্যক্রম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বিরোধী তৎপরতায় জড়িত থাকা, গত ২৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত রোহিঙ্গা সমাবেশে আর্থিক সহায়তা, টি-শার্ট সরবরাহসহ আরও কিছু অভিযোগ প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় এনজিও ব্যুরো এ আদেশ দিয়েছে।

ইতোমধ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ কক্সবাজার জেলা থেকে এনজিও দু’টির সব প্রকল্প গুটিয়ে নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

Comments are closed.