ঢাকা টাইমস সম্পাদককে প্রাণনাশের হুমকি, না:গঞ্জে মানববন্ধন

9

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: দেশের প্রথম সারির অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকাটাইম টুয়েন্টিফোর কম এবং দৈনিক ঢাকা টাইমস ও সাপ্তাহিক এই সময় পত্রিকার সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলনকে প্রাণনাশের হুমকির ঘটনায় নারায়ণগঞ্জে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে স্থানীয় সাংবাদিকরা হুমকির ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার জন্য দাবি জানিয়েছেন। ২ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ঢাকা টাইমসের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলাম রোকনের আয়োজনে এই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শহিদুল্লাহ রাসেল, জেলা সাংবাদিক সংগ্রামের পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শেখ মনির হোসেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম আরজু, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর হোসেন রনি, দৈনিক সমকাল পত্রিকার ফটো সাংবাদিক মেহেদী হাসান সজীব, ডেইলি স্টার পত্রিকার নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি সনদ সাহা সানি, নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডির নিউজ এডিটর মাসুদ রানা রনি, দৈনিক ডেসটিনি পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মাহফুজ সিহান, সোনারগাঁও রিপোর্টার্স ক্লাবের সহ-সভাপতি কামরুজ্জামান মিলন, বার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকমের জেলা প্রতিনিধি সাবিত আল হাসান ও মুক্তির টিভি অনলাইন চ্যানেলের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুমন মিয়া প্রমূখ। এ ছাড়াও এই প্রতিবাদ সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন- আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধান, অ্যাডভোকেট আলী হোসাইন, অ্যাডভোকেট শেখ আনজুম আহমেদ রিফাত, অ্যাডভোকেট আসমা হেলেন বিথি, অ্যাডভোকেট কেএম সুমন। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বক্তারা বলেন, দেশে বিরল ঘটনা একজন স্বনামধন্য পত্রিকার সম্পাদক ও প্রতিথযশা সাংবাদিক আরিফুর রহমান দোলনের কাছে সন্ত্রাসীদের চাঁদা দাবি এবং সেই সঙ্গে চাঁদা না দিলে প্রাণনাশের হুমকি। আমরা দ্রুত ওইসব সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাই।

নতুবা সারাদেশের সাংবাদিক সমাজ এই ঘটনায় আরো জোড়ালো প্রতিবাদ করতে মাঠে নামবে এবং নারায়ণগঞ্জের সকল সাংবাদিকদের নিয়ে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ারও হুশিয়ারী দেন সাংবাদিক নেতারা। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলার সংবাদের প্রকাশক ও সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, স্থানীয় দৈনিক অগ্রবানী পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক রাশেদ চৌধুরী, দৈনিক অগ্রবানী প্রতিদিন পত্রিকার বার্তা সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, নিউজ নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটনেটের সাংবাদিক মোবাশি^র শ্রাবণ, ভোরের বিডি ডটকমের প্রকাশক ও সম্পাদক কাইযুম আলী, খবর নারায়ণগঞ্জের নির্বাহী সম্পাদক মশিউর রহমান, নিউজব্যাংক টুয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আল মামুন খান, দৈনিক যুগের চিন্তা পত্রিকার সাংবাদিক মামুনুর রহমান মামুন, মেহেদী হাসান, চ্যানেল ফোর টিভির জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ সাজু হোসেন, দৈনিক সংবাদচর্চা পত্রিকার সাংবাদিক রায়হান কবির নিলয়, সান নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমের চিফ রিপোর্টার আব্দুল্লাহ আল মামুন, নারায়ণগঞ্জ টুডের সাংবাদিক অনিক, আজকের নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিক আশিকুর রহমান, জাগো নারায়ণগঞ্জ অনলাইনের সাংবাদিক লিটন হোসেন গাফফার, মনিকা আক্তার, নারায়ণগঞ্জ প্রতিদিন পত্রিকার সাংবাদিক রিপন মাহামুদ, প্রতিদিনের নারায়ণগঞ্জ পত্রিকার মোহাম্মদ সুলতান, সাংবাদিক জসিমউদ্দীন, আরিফ হোসেন এবং শিক্ষানবিশ আইনজীবী সুলতান মাহমুদ সুমন ও রহুল আমিন প্রমূখ। এখানে উল্লেখ্যযে, টাকা চেয়ে দ্বিতীয়বারের মতো দৈনিক ঢাকা টাইমস ও সাপ্তাহিক ‘এই সময়’-এর সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলনকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়। ২৬ নভেম্বর সোমবার দুপুরে শীর্ষ সন্ত্রাসী সুব্রত বাইন পরিচয়ে আরিফুর রহমান দোলনের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে এ হুমকি দেয়া হয়। এ ঘটনায় নিজের নিরাপত্তা চেয়ে রাজধানীর রমনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন দোলন। জিডি নম্বর ১৫৮৯। ওই দিন সাংবাদিক আরিফুর রহমান দোলন জানান, সোমবার দুপুরে তিনি তার ইস্কাটন গার্ডেনের পত্রিকা অফিসে কাজ করছিলেন। এ সময় তার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে একটি টেলিটক (০১৫১৮-৪৩৪১২৩) নম্বর থেকে ফোন করে ওই হুমকি দেয়া হয়। ঢাকাটাইমসের সম্পাদক বলেন, ‘আমাকে ফোন করে বলা হয়, আপনি কি আরিফুর রহমান বলছেন? আমি জবাব দিই, ‘হ্যাঁ’।

ওপর প্রান্তে থাকা লোকটি বলেন, আমি সুব্রত বাইন, আমাকে চিনতে পারছেন? আমি বললাম, ‘না’। পরে তিনি বলেন, আমি ইন্ডিয়া থেকে বলছি। শীর্ষ সন্ত্রাসী সুব্রত বাইন। আমি বলি, বুঝলাম। কিন্তু আমার সঙ্গে কী কাজ আপনার? জবাবে বলেন, আমার লোক বিপদে পড়েছে। ১৪ লাখ টাকা লাগবে। ১০ লাখ জোগার করছি, চার লাখ আপনি দেন।’ এ সময় দোলন নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিলে ওই ব্যক্তি বলেন, আপনার তো লোকজন চেনাজানা আছে। আপনি তো জোগার করতে পারেন। এ সময় চাহিদা মতো টাকা না দিলে দেখে নেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। জবাবে দোলন তাকে অফিসে এসে দেখা করতে বললে সুব্রত বাইন পরিচয় দেয়া ব্যক্তি অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেন ‘অফিসে যাবো না। আমার লোকজন যোগাযোগ করবে। এক পর্যায়ে ঢাকাটাইমস সম্পাদক ফোনের লাইন কেটে দেন। তিনি বলেন, ‘এরপর ছয়টি টেলিটক নম্বর থেকে এবং ভারতের কান্ট্রিকোডসহ একটি নম্বর থেকে একের পর এক ফোন আসতে থাকে।’ শীর্ষ সন্ত্রাসী স্ব্রুত বাইন পরিচয়ে মোবাইলে এমন হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতা বোধ করে থানায় জিডি করেছেন ‘ঢাকাটাইমস’ ও সাপ্তাহিক ‘এই সময়’ সম্পাদক। নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করেছেন তিনি। এর আগে গত ২৪ নভেম্বর শনিবার দুপুরে শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদাত পরিচয়ে দোলনের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে হুমকি দেয়া হয়। ওই ঘটনাতেও নিজের নিরাপত্তা চেয়ে রাজধানীর রমনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন দোলন।

Comments are closed.