সরিষাবাড়ীতে পরকিয়ার প্রেমের সন্তানকে হত্যা মা গ্রেফতার

125

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুরঃ জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে পরকিয়ার প্রেমের জেরে বালিশ চাপায় নিজ সন্তানকে হত্যা। মা ও প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হত্যাকাÐের সাড়ে তিনমাস পর সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেছে নিহতের বাবা। বৃহষ্পতিবার সকালে ঘাতক বানেছা বেগম(২৬) ও প্রেমিক জুরান আলীকে(৩২) জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিহত শিশুটি উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের চর বাশুরিয়া গ্রামের আবুদাবি প্রবাসী আক্তার হোসেনের একমাত্র ছেলে কাউসার ইসলাম তুষার (৯)। সে স্থানীয় সোনামুই কেজি অ্যান্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলো। চলতি বছরের ২৫ মে মাকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা ফেলায় শ্বাসরোধে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে চালানো হয়।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্র জানা গেছে, আক্তার হোসেন জীবিকার জন্য সাত বছর আগে আবুদাবিতে যান। স্বামীর অনুপস্থিতির সুযোগে তার স্ত্রী বানেছা বেগম প্রতিবেশী জুরন আলীর সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। চলতি বছরের ২৫ মে বাড়ির গোসলখানায় তাদের দু’জনকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে তুষার। ঘটনা জানাজানি হওয়ার ভয়ে ওইদিন মা ও প্রেমিক মিলে ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করা হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এদিকে ছেলের মৃত্যুর পর আক্তার হোসেন দেশে চলে আসেন। মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) পুলিশ ময়না তদন্ত রিপোর্টও হাতে পায়। রিপোর্টে তুষারকে শ্বাসরোধে হত্যার প্রমাণ মেলে। ওইদিন রাতেই নিহতের বাবা বাদি হয়ে স্ত্রী ও তার প্রেমিককে আসামী করে থানায় হত্যা মামলা (নং ৫) দায়ের করেন। বুধবার ভোরে পুলিশ দু’জনকে গ্রেফতার করে।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মাজেদুর রহমান জানান, মা ও তার প্রেমিককে জিজ্ঞাসাবাদে তারা শিশু সন্তানকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। বুধবার দুপুরে প্রেমিক জুরনকে ও বৃহষ্পতিবার বানেছাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

Comments are closed.