ইসলামপুরে যমুনার দুর্গম মন্নিয়া বরুলে বাড়ছে অপরাধ

15

নারায়ন মোদক ইসলামপুর প্রতিনিধি ঃ জামালপুরের ইসলামপুর যমুনার দুর্গম বরুল ও মন্নিয়া চরাঞ্চলের চিহ্নিত দুর্র্বৃত্তরা দিনদিন চুরি ডাকাতি ও মাদক ব্যবসায় বেপড়–য়া হয়ে ্উঠছে। দুবর্ৃৃত্তরা এখানে স্থানীয় অপরাধ বিরোধীদের সাথেও প্রকাশ্যে রক্তক্ষয়ি সশস্ত্র সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, ইসলামপুরের বেলগাছা ইউনিয়নের বরুল ও মন্নিয়া এলাকাটি যমুনার মধ্যবর্তী দুর্গম চরাঞ্চল। এই দুর্গম চরাঞ্চলের চারিদিকেই যমুনা নদী এলাকাটি উপজেলা শহর থেকে যমুনা দ্বারা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন। ইসলামপুরের গুঠাইল অথবা কুলকান্দি নৌঘাট থেকে যমুনা নদী পথে স্যালো ইঞ্জিন চালিত নৌকা যোগে বরুল ও মন্নিয়া চরে যেতে প্রায় ১ ঘন্টা সময় লাগে। দক্ষিণ মন্নিয়া চর থেকে উত্তর বরুল পর্যন্ত প্রায় ৮ কিলোমিটার প্রশস্তের এই চরটি যমুনার শাখা নদী দিয়ে চারভাগে বিভক্ত। বরুল ও মন্নিয়া চর দুটিতে প্রায় ২০ হাজার মানুষ বসবাস করছে।

সেখানে কয়েকটি স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা ও ১টি কমিউনিটি হেলথ সেন্টার রয়েছে। তবে সেখানে মানুষের যাতায়াতের জন্য রাস্তাঘাট নেই বললেই চলে। এখানে নদীর পাড় ও ক্ষেতের আইল ধরে যাতায়াত করতে হয়। তাই নৌকা এবং পায়ে হাটা ছাড়া এলাকাটিতে যাতায়াত করা অসম্ভব। এখানে আইন শৃংখলা বাহিনীর পক্ষেও নিয়মিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা দুঃসাধ্য। এখানে চুরি ডাকাতি ও মাদক ব্যবসার ভাগাভাগি নিয়ে দুবর্র্ৃৃত্তরা মাঝে মধ্যেই একে অপরের সাথে হানাহানিতে লিপ্ত হয়। এছাড়াও স্থানীয় অপরাধ বিরোধীদের সাথেও এলাকার চিহ্নিত দুবর্র্ৃৃত্তরা প্রকাশ্য সশস্ত্র হানাহানিতে জড়িয়ে পড়ায় এখানে প্রতিবছরই খুনের ঘটনা ঘটছে।

অভিযোগে জানা গেছে, ইসলামপুরের বরুল ও মন্নিয়া চরাঞ্চলের দুর্গম যোগাযোগ ব্যবস্থাকে প্ূঁজি করে স্থানীয় দুর্বৃত্তরা এলাকাটিকে চুরি, ডাকাতি ও মাদকের স্বগরাজ্যে পরিণত করেছে। বিশেষ করে মন্নিয়া চরের বাসিন্দা চুরি ডাকাতিসহ ছয়টি মামলার আসামী চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সুজন এই চরাঞ্চলে মাদক ব্যবসা ও যমুনায় নৌ-ডাকাাতির নেতৃত্বে রয়েছে। এই সুজন ডাকাতের নেতৃত্বেই এলাকার মুসা ডাকাত, বুছা আলম, রাশেদ জামান, এন্তা বেপারী, রহিমদ্দীন, মোগল, হেলাল ও ছালামসহ স্থানীয় একটি চিহ্নিত দুর্বৃত্ত চক্র মাঝে মধ্যেই যমুনায় নৌ-ডাকাতি এবং ইয়াবা ও ফেনসিডিলসহ বিভিন্ন মাদকের জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে যমুনার চরাঞ্চলে চুরি ডাকাতি ও মাদক নিয়ন্ত্রণে স¤প্রতি মন্নিয়া চরাঞ্চলে স্থানীয় ইউপি সদস্য আলী হোসেনের নেতৃত্বে এলাকায় গড়ে উঠেছে একটি অপরাধ বিরোধী সংগঠন। ওই অপরাধ বিরোধীদের সাথেও সম্প্রতি যুদ্ধ ঘোষণা করেছে দুবর্ৃৃত্তরা।

 

এদিকে মাদক ব্যবসায় বাঁধা দেওয়ায় ইউপি সদস্য আলী হোসেনের উত্তর বরুল গ্রামের বাড়ীতে গত মঙ্গলবার সন্ধায় স্থানীয় দুর্বৃত্তরা প্রকাশ্যে সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে। ওই হামলার সময় দুবর্ৃৃত্তরা ইউপি সদস্য আলী হোসেনের ভাই খাইরুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলামকে নিজ বাড়ী থেকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়। দুবর্ৃৃত্তরা ওইদিন তাদেরকে গুলিবিদ্ধ ও বেধরক মাইরপিট করে যমুনার বালুর চরে বেঁধে রাখে। এঘটনার পরদিন বেলগাছা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক এলাকার চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের সাথে পরামর্শ করে গুরুতর আহত গুলিবিদ্ধ খাইরুল ইসলামকে উদ্ধার করে গুঠাইল ঘাটে পৌঁছে দিয়েছেন। ওই হামলায় গুরুতর আহত খাইরুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম আজও জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ইসলামপুর থানার ওসি (তদন্ত) আনসার উদ্দিন জানান, ইসলামপুরের দুর্গম চরাঞ্চলের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে নৌ-থানা পুলিশের সমন্বয়ে যমুুনায় পুলিশী টহল ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি যমুনার চরাঞ্চলে সংঘর্ষের ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ করলে দ্রæত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

Comments are closed.