বাপ্পি সাহা’র প্রথম উপন্যাস “সৃষ্টিতার উষ্ণ চুম্বন” পাওয়া যাচ্ছে অমর একুশে ২০১৯ গ্রন্থমেলায়

11

বাপ্পি সাহা। কবি, গল্পকার ও সম্পাদক
জন্ম- ৫ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের বিটঘর গ্রাম। সেখানেই লেখক শৈশব কাটিয়ে নারায়ণগঞ্জে আসেন বাবার হাত ধরে।এখন নারায়ণগঞ্জেই বসবাস। পিতা প্রবোধ চন্দ্র সাহা একজন বস্ত্র ব্যবসায়ী মাতা তুলসী রানী সাহা গৃহিনী। দুই বোন এক ভাইয়ের মধ্যে লেখক দ্বিতীয়।
ছাত্রজীবন থেকে লেখক বিভিন্ন সাংস্কৃতি কর্মকান্ডে অংশগ্রহনেরর পাশাপাশি সাহিত্য সংগঠন ও লেখালেখির সাথে জড়িত।তিনি কবিয়াল ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং কবিসংসদ বাংলাদেশ এর সাংগঠনিক সম্পাদক।
বাপ্পি সাহা বাবার ব্যবসা দেখাশোনার পাশাপাশি সাহিত্য সংগঠন কবিয়াল ফাউন্ডেশন এর “কবিয়াল” (কাব্যজনের প্রতিবিম্ব) সাময়িকী এবং
Kabial24.com এর সম্পাদক এবং লেখালেখি করেন।
ইতিপূর্বে তাঁর লেখা রাঙ্গা প্রজাপতির ডানা (কবিতা ২০১৪),ছায়াদ্বীপ (গল্প ২০১৫),স্মৃতির ক্যানভাসে (কবিতা ২০১৬),বিষাদের খেয়া (কবিতা ২০১৭),বাপ্পি সাহা’র শত কবিতা (কবিতা ২০১৮)এবং সম্পাদিত গ্রন্থ
“জনক” প্রকাশ পেয়েছে।

সৃষ্টিতার উষ্ণ চুম্বন লেখকের ষষ্ঠ গ্রন্থ ও প্রথম উপন্যাস।তিনি লেখালেখি এবং সাহিত্য সংগঠন করতে ভালোবাসেন।প্রগতিশীল চেতনা ও বাঙালি জাতিসত্তা ও মুক্তিযুদ্ধ তাঁর পছন্দের বিষয়।সৃজনশীল ভাবনা কল্পনা সাংস্কৃতিক চর্চা তাঁর আত্মার খোরাক ও লেখালেখি নেশা। এই নিয়ে তাঁর লেখক জীবন।

“সৃষ্টিতার উষ্ণ চুম্বন” একটি অনবদ্য রোমান্টিক উপন্যাস। লেখকের ভালোলাগা ভালোবাসা নিয়ে কাহিনির সূত্রপাত। একজন কবির জন্মদিনে তাকে অভিনন্দন জানাতে গিয়ে নায়কের সাথে নায়িকার পরিচয়। তারপর ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ভাবের আদান প্রদানের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যান সৃষ্টিতা। ব্যাপারটা অনেক দূর এগিয়ে যায়। সম্পর্কের গভীরতা উষ্ণ চুম্বনে আবদ্ধ করে সৃষ্টিতাকে…।

Comments are closed.