রৌমারীতে ভুট্টা চাষে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা কৃষকের মুখে হাসি

20

শফিকুল ইসলাম, ব্যুরো অফিস রৌমারী
কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারীর চরাঞ্চলে আগাম জাতের ভুট্টা চাষে বাম্পার ফলনের আশা করছেন এ এলাকার কৃষকগণ।

ইতিপূর্বে রৌমারী অঞ্চলের মানুষের কৃষি ফসল হিসেবে ি প্রয় ছিল গম, মাশকালাই, চিনা, মুশুর ডাল, ছুলা, খেসারী কালাই, মুগডাল, বাদাম ও সরিষাসহ নানা ফসলের চাষাবাদ হত। এক সময় কৃষি ফসল উৎপাদনে উন্নত প্রশিক্ষন না থাকায় কৃষির তেমন বিপ্লব ঘটেনি। সে সময় বিঘা প্রতি ফলন কম হওয়ায় উৎপাদন অনেকটা বন্ধ করে দেয় কৃষকরা। এদিকে বিকল্প হিসেবে বিশ্বের উনত দেশর সাথে তাল মিলিয় উন্নত জাতের উচ্চ ফলনশীল হাইব্রীড জাতের ভুট্টা চাষে মনোনিবেশ করছেন কৃষকরা।

ভুট্টা যদিও কয়েকশ বছর আগের পুরানা ফসল। যার উৎপত্তিস্থল মেক্সিকো দেশে। কালের আবর্তে ভুট্টা চাষে আগ্রহ ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বের বিভিন দেশে। যাহা কৃষি বিদদের উন্নত প্রযুক্তি ও উৎভাবনার মাধ্যমে হাইব্রীড ভুট্টা বীজ নামে পরিচিত। বাংলাদেশের মানুষ কৃষি নির্ভরশীল। তাই যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ভুট্টাকে কৃষি সম্ভাবনাময় ফসল হিসেবে বেচে নেয় কৃষকরা। যেহেতু ভুট্টা চাষ অল্প পরিশ্রম, স্বল্প খরচে বেশী ফলন পাওয়া যায়। এ অঞ্চলে প্রতি শতক জমিতে ২ মন করে ভুট্টা উৎপাদিত হয়। যা উৎপাদনের খরচের চেয়ে দ্বিগুন লাভ হয়। শুধু তাই নয় ভট্টারকান্ড জ্বালানি, গবাদি পশুর খাদ্য হিসেবে পাতা ব্যবহার করা হয়। এছাড়া ভুট্টার আটা, মৎস খাদ্য, মুরগীর খাবারসহ নানা তালিকায় রয়েছে। বর্তমান ভুট্টাকৃষি বিপ্ল¬ব ঘটাতে ও কৃষকের অর্থনৈতিক চাহিদা মিটাতে প্রধান অর্থকরী ফসল হিসাবে তালিকায় রয়েছে। রৌমারী নদী-ভাঙ্গন ও বন্যা কবলিত অঞ্চল হওয়ায় ভুট্টা চাষে কদর বেড়েছে। সাধারনত ইরি-বোর চাষ অনুপযোগী জমিতে ভুট্টার চাষ করা হচ্ছে।

ভুট্টা চাষী উপজেলার চান্দারচর গ্রামের আবু সাইদ, আব্দুল গফুর, নওদাপাড়া গ্রামের রেজাউল করিম, দাঁতভাঙ্গা গ্রামের মুকুল মিয়া ও আজগর আলী জানান, নদী ভাঙ্গন বন্যার পানির সাথে বালি এসে ইরি-বোর চাষ অনুপযোগী হওয়ায় ওইসব জমিতে ভুট্টা চাষ করা হয়েছে, এতে ইরি-বোরর চেয়ে বেশী লাভবান হওয়ার আশা করছেন তারা।
রৌমারী উপজেলার কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায়, এ বছর রৌমারীতে ৩হাজার ৩’শ ৫৫ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ করা হয়েছে। লাভ ভালো হওয়ায় দিনদিন ভুট্টা চাষে ঝুকছে কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিসার শাহরিয়ার হোসেন জানান আগের চেয়ে বর্তমান ভুট্টা চাষে বেশি আগ্রহ হচ্ছে চাষীরা।
উপ-সহকারী কৃষি অফিসার জিয়াউর রহমান, তোফায়েল আহমেদ, মিজানুর রহমান মিজান বিভিন্ন মাঠ ঘুরে এসে বলেন এবার ভুট্টা বাম্পার ফলন হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। আশা করি আগামীতে ভুট্টা চাষে আরো অনেক বেশি আগ্রহী হবে কৃষকরা।

Comments are closed.