ইসলামপুরে ঐতিহ্যবাহী বাণিজ্য কেন্দ্র গুঠাইল বাজারে প্রবেশের রাস্তায় জলাবদ্ধতা, জনদুর্ভোগ চরমে

118

রোকনুজ্জামান সবুজ জামালপুর : জামালপুর জেলার ঐতিহ্যবাহী বাণিজ্য কেন্দ্র ইসলামপুর উপজেলার গুঠাইল বাজারে প্রবেশের পাকা রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত জলাবদ্ধ রয়েছে। সেখানে পানি নিষ্কাসনের জন্য কোন ড্রেণ না থাকায় প্রতিদিন অসংখ্য মানুষকে যাতায়াতের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এবং সামান্য বৃষ্টি হলেই প্রায় দুইশ পরিবারকে পানিবন্দি জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

সরেজমিন ঘুরে জানাগেছে, জামালপুর জেলার ঐতিহ্যবাহী বাণিজ্য কেন্দ্র ইসলামপুর উপজেলার গুঠাইল বাজার। ইসলামপুরের পশ্চিাঞ্চলের চরবসতি কৃষকদের উৎপাদিত অর্থকরি ফসল পাট, ধান, মরিচ, পিয়াজ, ভুট্টা, গম, প্যারা, কাউন, চিনা, সরিষা এবং আলু, বেগুনসহ নানা শাক-সবজি ও রবিশষ্যের গুরুত্বপূর্ণ হাট গুঠাইল বাজার। যমুনা তীরবর্তী এ বাজারটিতে সপ্তাহের দুইদিন সোমবার ও শুক্রবার কয়েক লাখ মানুষের সমাগম হয়। এখানে কেনাকাটার জন্য সপ্তাহের দুইদিনই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও ছুটে আসেন অসংখ্য ব্যবসায়ী। এছাড়াও ইসলামপুর উপজেলার সাপধরী, নোয়ারপাড়া, বেলগাছা, কুলকান্দী ও চিনাডুলী ইউনিয়নের চরবসতি হাজার হাজার মানুষ নৌকা যোগে সপ্তাহের দুইদিন গুঠাইল বাজারে এসেই কেনাকাটা করেন। অথচ ঐতিহ্যবাহী এই বাজারে প্রবেশের পাকা রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত জলাবদ্ধ রয়েছে। সেখানের জলাবদ্ধতা নিরসনে পানি নিষ্কাসনের জন্য আজও কোন ড্রেণ নির্মিত হয়নি। এতে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এবং সামান্য বৃষ্টি হলেই প্রায় দুইশ পরিবারকে পানিবন্দি জীবন যাপন করতে হচ্ছে।
গুঠাইল বাজার কমিটি সাধারন সম্পাদক শাহিদুল আলম ও স্থানীয় ইউপি সদস্য মজনু মন্ডলের সাথে কথা হলে তারা জানান ,গুঠাইল বাজার সংলগ্ন পাকা রাস্তায় দীর্ঘদিন যাবত জলাবদ্ধতার কারনে মাঝিপাড়া, পাইলিং পাড় এবং বাজারের পাশে থাকা একটি রাইস মিল ও দুইটি স-মিলসহ প্রায় দুইশত পরিবার দীর্ঘদিন যাবত দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এচাড়াও গুঠাইল বাজার সংলগ্ন পাকা রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে পানি বন্দী রয়েছেন খাজা মন্ডল, বাদশা আলম, শ্রী আমল, ছইবর রহমান, সহিদুর রহমান, মজিবর, মো. মোস্তফা, মো. ভিক্কু ও মো. বাবলু মন্ডলসহ প্রায় দুইশ পরিবার।
ইসলামপুুরের চিনাডুলী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল সালাম জানান, গুঠাইল বাজার সংলগ্ন পাকা রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারনে স্বল্প বৃষ্টিতেই বাজারের প্রতিটি অলিতে গলিতে দীর্ঘক্ষণ বৃষ্টির পানি জমে থাকে। ওই সময় বাজারে আসা মানুষকে নোংরা কাঁদা পানি ভেঙ্গে যাতায়াত করতে হয়। এছাড়াও একই জলাবদ্ধতার কারনে গুঠাইল স্কুল এন্ড কলেজ, গুঠাইল সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা ও গুঠাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরও দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ দুর্ভোগ লাঘবের জন্য গুঠাইল বাজারের খালেকের দোকান হইতে চৌরাস্তা মোড় এবং বাদশা হাজীর গোডাউন হয়ে যমুনা নদীর পাইলিং ঘাাট পর্যন্ত একটি ড্রেণ নির্মাণ করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
জামালপুর জেলা পরিষদের সদস্য ওয়ারেছ আলী জানান, গুঠাইল বাজারে প্রবেশের পাকা রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত জলাবদ্ধ রয়েছে। গুঠাইল বাজারের অধিকাংশ রাস্তার দুই পাশের দোকানেও স্বল্প বৃষ্টিতেই হাটু পানি জমে। এ কারণে প্রতিদিন হাজার হাজাার মানুষকে যাতায়াতের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তিনি অবিলম্বে গুঠাইল বাজারে খালেকের দোকান হইতে চৌরাস্তা মোড় এবং বাদশা হাজীর গোডাউন হয়ে যমুনা নদীর পাইলিং ঘাাট পর্যন্ত একটি ড্রেণ নির্মাণ করা হলে দুর্ভোগ হাত থেকে রক্ষা পাবে।

Comments are closed.