মশার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ ফতুল্লাবাসি

18

ফতুল্লা প্রতিনিধি:
ফতুল্লায় মশার উপদ্রব ক্রমেই বেড়েছে। বিভিন্ন এলাকার জলাবদ্ধতা নিয়মিত পরিস্কার না করায় এগুলোতে মশার প্রজনন তৈরি করেছে। ময়লা আবর্জনা ভরা ডোবা ও খাল গুলোতে পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল জমে থাকায় ও ময়লা পানি ঠিক মতো অপসারন করতে না পারায় দূষিত পানিতে মশার জন্ম হচ্ছে। এলাকাবাসির অভিযোগ সম্প্রতি ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন এলাকায় মশার ঔষধ না ছিটানোর কারনে মাএাতিরিক্ত পর্যায়ে বেড়েছে মশার উপদ্রব। এতে ডেঙ্গুসহ মশা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন রোগব্যধিতে আক্রান্ত হওয়ার আশংক্ষা করছেন অনেকেই।
ফতুল্লা এলাকার শেয়ারচর, লামাপাড়া, লামারবাগ, কাঠেরপুল ,পিঠালিপুল, সস্তাপুর, বুড়িরদোকান, ইসদাইরসহ সব খাল গুলোতে মশার উৎপওির প্রায় একই চিএ। স্থানীয়দের অভিযোগ মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। বাসাবাড়ি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অফিসসহ বিভিন্ন স্থানে মশার আক্রমন থেকে রক্ষা পাচ্ছে না ক্উে। দিনে ও রাতে মশার স্প্রে ব্যবহার করতে হয়। তারপরও মশার কাছে সবার হার মানতে হচ্ছে। ফতুল্লা লামাপাড়া এলাকার বাসিন্দা আবু তাহের বলেন, মশার কারনে দিনের বেলায় থাকা যায়না রাতেও একই অবস্থা। এছাড়াও মশার কারনে জনসাধারন ডেঙ্গু ও মহামারি রোগে ভূগছে। অনেকেরই হাসপাতালে যেতে হচ্ছে। আবু সালেহ বলেন, মশার কামড়ে কোথাও দুই মিনিট দাড়ানো যায়না। মশার ভয়ে দিনে রাতে জানালা বন্ধ করে রাখতে হয়। ইসদাইর এলাকার বাসিন্দা শুক্রর বলেন, অতীতের কয়েক বছরের তুলনায় বর্তমান সময়ে মশার উপদ্রব এতোই বেড়েছে যা মানুষের জনজীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলছে। সস্তাপুরের মোস্তফা মুন্সি বলেন, পাঁচতলার উপর থাকি কিন্তু মশার যন্ত্রনা থেকে নিস্তার পাচ্ছিনা। এদিকে মশার উপদ্রব থেকে রক্ষা পেতে ইউনিয়ন পরিষদ কতৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।
এমতাবন্থায় মশার উপদ্রব থেকে রক্ষা পেতে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদ কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছে ফতুল্লার বৃহওম এলাকাবাসি।
এবিষয়ে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান স্বপন বলেন, মশার উপদ্রব সারা বাংলাদেশে প্রকট আকার ধারন করছে। তবে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের আওতাধীন একটু বেশী। এসময় তিনি বলেন আমরা জনসাধারনের কল্যানার্থে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে দ্রুত মশার ঔষধ ছিটানোর ব্যবস্থা গ্রহনে ওপর মহলে তদবির করছি।
এবিষয়ে ইউপি সদস্য আলী আকবর বলেন, মশার বিরুদ্ধে অনেকের অভিযোগ রয়েছে। তাই কিছু দিনের মধ্যে জরুরী ভিওিতে মশা নিধনে ঔষধ ছিটানোর ব্যবস্থা নিবো।

Comments are closed.