ঈদে মিলাদুন্নবী অনুষ্ঠানে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য দোয়া

5

স্টাফ রিপোর্টার:৫৭০ খ্রীঃ মক্কার ( উচ্চ বংশ ) কুরআইশ বংশে ১২ই রবিউল আউয়াল সোমবার সোবহে সাদিকের সময় জন্ম গ্রহন করেন সকল কুলকায়নাতের আলো হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জন্ম দিবস উপলক্ষে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত কেন্দ্রীয় শাখার আয়োজনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের চত্বরের সামনে যথাযথ মর্যাদায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালিত হয়েছে।

রোববার সকাল ১০টায় বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও ইমামে রাব্বানীদরবার শরীফের পীর সৈয়দ বাহদুর শাহ মোজ্জাদ্দেদীর আসন গ্রহণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়।

এর পর হাজার হাজার মুসলমানের অংশগ্রহণে নারায়ণগঞ্জ নগর ভবন সংলগ্ন বাইতুল ইজ্জত জামে মসজিদ প্রাঙ্গন থেকে বণার্ঢ্য জশনে জুলুস (আনন্দ শোভাযাত্রা) বের হয়। শোভাযাত্রাটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার ইজ্জত জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে ফিরে এসে শেষ হয়। সর্বশেষে মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত ঘোষণা করেন। মোনাজাতে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য দোয়া করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইমামে রাব্বানী দরবার শরীফের পীর সৈয়দ বাহদুর শাহ মোজ্জাদ্দেদী বলেন, যাকে সৃষ্টির কারণে সব সৃষ্টির আয়োজন। পবিত্র কোরআন যার ওপর অবর্তীণ হয়েছে। যাকে অনুসরণ করলে পবিত্র কোরআন অনুসরণ করা হয়। তার জীবনদর্শন অনুসরণ করে সব অন্যায় অবিচার পরিত্রাণ পাওয়া যায়। মহান আল্লাহ জগতের রহমত হিসেবে তাকে প্রেরণ করেছেন। তার জীবনদর্শন করতে হবে আমাদের। তাহলে জগতে সুখ শান্তি ফিরে আসবে। তিনি শুধুমাত্র মুসলিম জাতির জন্য তিনি নয় বরং সকল ধর্ম, বর্ণ, গোত্রের মানুষের মুক্তির জন্য আলআমিন হিসেবে আল্লাহ তাকে প্রেরন করেছে। কিন্তু আফসোস আমরা সেই মহান আদর্শকে ভূলে গিয়ে মানবরচিত মতবাদের দিকে ধাবিত হয়েছে।

এসময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ জাহের শাহ মোজ্জাদ্দেদী আল আবেদী, মাহমুদ শাহ মোজ্জাদ্দেদী, রোটারিয়ান গিয়াস উদ্দিন, শাহদাত হোসেন, রহমতুল্লাহ সেন্টু, নুরুল ইসলাম, এম মনির হোসেন, আব্দুল বাসেদ, আব্দুল রহমান এবং জশনে জুলুস ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (সঃ) উদযাপন কমিটির সকল সদস্য ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআ’ত এর সকল সদস্য বৃন্দ।

Comments are closed.