শরীয়তপুরের ককটেল বিস্ফোরণে আহত-৫

4

শরীয়তপু প্রতিনিধিঃশরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার ইদিলপুর ইউনিয়নের মাছুয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে একটি পরিত্যক্ত ঘরে ককটেল বিস্ফোরণে পাঁচ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। আহত চারজন ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও একজন পাশের একটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহত শিশুদের গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গোসাইরহাট থানা ও মাছুয়াখালী বিদ্যালয় সূত্রে জানায়, দুপুর ২টার দিকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়সংলগ্ন ওয়াজউদ্দিন মাতবরের একটি পরিত্যক্ত ঘরে খেলতে যায়। সেখানে একটি ব্যাগ দেখতে পায় তারা। শিক্ষার্থীরা ওই ব্যাগটি নিয়ে খেলা করতে থাকে। তখন বিকট শব্দ করে বিস্ফোরণ ঘটে।

এতে ওই বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমাইয়া (৮), তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ইয়াসমিন (৯), চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী তানজিলা (১০), শিশু শ্রেণির মাহিম (৫) ও প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ইয়াছিন (৬) মারাত্মক আহত হয়। পরে তাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গ্রামবাসী উদ্ধার করে গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

 

আহত শিশু তানজিলার বাবা আফজাল ব্যাপারী বলেন, আমার দুই মেয়ে ও প্রতিবেশী আরও তিন শিশু বিদ্যালয়ের পাশের ওয়াজউদ্দিন মাতবরের পরিত্যক্ত ঘরে খেলতে যায়। সেখানে ককটেল বোমার বিস্ফোরণে তারা আহত হয়। ওই ঘরে কীভাবে বোমা আসল তা আমরা বুঝতে পারছি না।

মাছুয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান বলেন, ওই পরিত্যক্ত ঘরটিতে শিশুরা খেলা করছিল। সেখানে কীভাবে বোমা আসল তা আমরা বলতে পারব না। আল্লাহর রহমতে বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে শিশুরা বেঁচেছে।

গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, শিশুদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের হাত ও পায়ের বিভিন্ন স্থানে স্পি্লন্টারের আঘাত রয়েছে। এক্স-রেসহ বিভিন্ন পরীক্ষা দেয়া হয়েছে।

গোসাইরহাট থানা পু‌লি‌শের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম রেজা বলেন, ককটেল বিস্ফোরণে শিক্ষার্থীদের আহত হওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়েছিলাম। সেখানে বিস্ফোরিত ককটেল বোমার আলামত পাওয়া গেছে। ওই ঘরে কীভাবে বোমা আসল ও এর সঙ্গে কারা জড়িত তা তদন্ত করা হচ্ছে।

Comments are closed.