গ্যাসের মূল্য বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবীতে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” মানববন্ধন

6

স্টাফ রিপোর্টার: গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ এবং বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবীতে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচী পালিত হয়।

শনিবার (৬ জুলাই) সকাল ১১টায় চাষাঢ়া নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব চত্বরে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নুর উদ্দিন আহম্মেদ এর সভাপতিত্বে ও সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক শ্রমিক নেতা মাহমুদ হোসেন এর সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচী পালিত হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাসির উদ্দিন মন্টু, সভাপতি মন্ডলীর সদস্য মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, সাংবাদিক সুভাষ সাহা, মোঃ আনোয়ার হোসেন দেওয়ান, লোকমান আহম্মেদ, আবু হাসান টিপু, মো. রফিকুল ইসলাম, দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাকিদ মুস্তাকিম শিপলু, মাদক বিরোধী সচেতন নাগরিক সমাজের আহŸায়ক বদরুল হক।

সভাপতি বলেন, বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন (বিইআরসি) কর্তৃক সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ভাবে প্রায় ৩৩% শতাংশ গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” সংগঠনের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। গ্যাস সঞ্চালন ও বিতরণ কোম্পানী গুলি লাভে থাকলে আইন অনুযায়ী দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিতে পারে না। এটি আইনের লংঘন, আবাসিক চুলায় বিভিন্ন এলাকায় রান্নার জন্য যেখানে পর্যাপ্ত গ্যাস নাই সেখানে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা মরার উপর খাড়া ঘা। তাছাড়া একটি অসাধু চক্রের যোগসাজসে সারাদেশে শিল্প কলকারখানা সহ আবাসিক ভাবে লক্ষ লক্ষ অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়েছে। যাহা সিষ্টেম লস হিসেবে দেখানো হয়েছে এই “দুর্নীতি” বের করার দায়িত্ব সরকারের। এই সিষ্টেম লস চুরির মাধ্যমে প্রতি বছর প্রায় ৮৫০০ কোটি টাকা লোপাট হচ্ছে। এই লোপাটকৃত লোকসান সমন্বয় করার জন্য বৈধ ভোক্তাদের উপর মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। যা সাধারণ ভূক্তভোগী জনগণ মেনে নিতে পারছে না। জনমনে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। পক্ষান্তরে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে যানবাহনের ভাড়া বৃদ্ধি জনিত কারণে ভোগ্য পন্যের মূল্য বৃদ্ধি সহ বাড়ি ভাড়া বৃদ্ধি পাবে যা সাধারণ মানুষের উপর একটি অতিরিক্ত বোঝা হয়ে দেখা দিয়েছে। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান।
সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন মন্টু বক্তব্যে জাতীয় সংসদ, মন্ত্রী পরিষদ ও সর্বপরি বাজেটকে উপেক্ষা করে লাভজনক প্রতিষ্ঠান হওয়া স্বত্তে¡ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন।

তিনি উল্লেখ্য করেন যে পাশর্^বর্তী দেশ ভারতে যেখানে আন্তর্জাতিক মূল্যের সাথে সামঞ্জস্য রেখে গ্যাসের মূল্য ১০১ রুপি কমানো হয়েছে, সেখানে আমাদের দেশে মূল্য বৃদ্ধি কেন? মূলত: ঋণ খেলাপী গ্যাসের সাথে সংশ্লিষ্ট লুটপাটকারী, দুর্নীতিবাজ কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের অবৈধ উপার্জনকে বৈধতা দেওয়ার জন্য গ্যাসের মূল বৃদ্ধির এই চক্রান্ত জনগণকে গলাটিপে অতিরিক্ত বিল আদায় করার সামিল। তিনি অবিলম্বে মূল্য বৃদ্ধির অবান্তর প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবী জানান।
মাহবুবুর রহমান ইসমাইল তার বক্তবে গ্যাসের মূল বৃদ্ধির যৌক্তিক কোন কারণ নাই বলে বিভিন্ন পরিসংখ্যান দিয়ে ব্যাখ্যা দেন। উপস্থিত জনতা এই ব্যাখ্যাকে সঠিক বলে মূল্যায়ন করেছেন।

শ্রমিক নেতা মাহমুদ হোসেন বলেন, আমাদের দেশে বেকারের সংখ্যা অগনিত। খনিজ সম্পদ উত্তোলনের পর সরবরাহ করা অর্থ দিয়ে ব্যাপক মিল ইন্ডাষ্ট্রিজ গড়ে তোলা যায় বেকারের সংখ্যা কমে। এমনকি এই সম্পদের মূল্য দিয়ে বেকার ভাতা দেওয়া সম্ভব বলেও তিনি অভিমত প্রকাশ করেন। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি অযৌক্তিক এই মূল্য বৃদ্ধিতে জনমনে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। যেকোন সময় এই ক্ষোভ বিষ্ফোরিত হলে সরকারের টিকে থাকা দায় হয়ে যাবে। জনগণ হরতালসহ যেকোনো কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবে। তিনি সরকারের গোয়েন্দা সংস্থাকে অনুরোধ করেন আমাদেরকে না ধরে, গ্যাসে চোরদের ধরেন।

মানবন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন আব্দুল কুদ্দুস আজাদ, হাজী মোঃ মনির হোসেন, হাজী মোঃ সেলিম হোসেন, শফিকুল ইসলাম খান, খাজা আহমেদ, নাজমুল খান নান্নু, সাইফুল আলম নান্টু, বি এম হোসেন, সায়েদুল ইসলাম শাকিল, মুক্তিযোদ্ধা শফি উদ্দিন আহমেদ, শফিকুল ইসলাম খান, মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ইকবাল হোসেন, মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, আশরাফ উজ জামান পাপ্পু, আবুল সরদার, মোঃ আলমগীর হোসেন, হাজী মোঃ দেলোয়ার হোসেন, খোকন রাজ, আমির উদ্দিন, উত্তম কুমার দাস পান্ডু, মমিনুল হক তপু, লিটন মিয়া, নারী নেত্রী পিয়ারী বেগম, আমেনা বেগম, দেলোয়ার হোসেন দেলু, বিপুল হোসেন শুক্কুর, মোঃ সেলিম মোঃ ফয়সাল, মোঃ ইউসুফ প্রমুখ।

Comments are closed.